West Bengal News

দড়ি ছিঁড়ে বেরিয়েছিল, আবার দড়ি বাঁধা হচ্ছে, মুকুল রায়ের প্রত্যাবর্তনকে বড় করে দেখতে নারাজ অনুব্রত

মুকুল রায় তৃণমূল কংগ্রেসে ফিরছেন রাজনৈতিক মহলে এই নিয়ে শোরগোল পড়লেও বীরভূমের তৃণমূল জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল কিন্তু একে বড় করে দেখতে নারাজ।

তিনি বলেছে, গরু দড়ি ছিঁড়ে বেরিয়েছিল। আবার দড়ি বাঁধা হচ্ছে। অর্থাৎ মুকুল রায় দলে ফিরছেন তৃণমূল নেত্রীর সিদ্ধান্তে। এর থেকে বেশি গুরুত্ব দিতে নারাজ তিনি।

তৃণমূলই তাঁর আসল ঠিকানা। ফের তৃণমূলে ফিরে এসে এমনই বার্তা িদয়েছেন মুকুল রায়। সাংবাদিক বৈঠকে মুকুল রায় বলেছেন আর বিজেপিতে যাওয়ার প্রশ্নই ওঠেনা। বিজেপির চ্যাপ্টার ক্লোজ। তৃণমূলে ফিরলেও কোন পদে মুকুল রায়কে বসানো হবে তা নিয়ে কোনও ইঙ্গিত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দেননি।

কাজই মুকুল-শুভ্রাংশু দলে ফিরলেও তাঁরা কোন পদ পাবেন তা এখনও ঠিক হয়নি। আগে যে পদে মুকুল রায় তৃণমূল কংগ্রেসে ছিলেন সেই পদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস।

মুকুল রায়ের ফেরাকে বড় করে দেখতে নারাজ তৃণমূল কংগ্রেস বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। তিনি স্পষ্ট জানিয়েছেন মুকুল রায় ফিরে আসতে পারেন কিন্তু দলের চাণক্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এটা মাথায় রাখতে হবে। মুকুল রায়কে আগে চাণক্য বলা হত।

২০২১-র বিধানসভা ভোটে ছিলেন না মুকুল রায়। তারপরেও বিপুল ভোটে জিেতছে তৃণমূল কংগ্রেস। দড়ি ছিঁড়ে বেরিয়েছিল আবার দড়ি বাঁধা হচ্ছে বলে কটাক্ষ করেছেন অনুব্রত।

দলের প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকেই তৃণমূল কংগ্রেসে ছিলেন মুকুল রায়। সেকারণে মুকুলের বিজেপিতে যোগ দেওয়ায় বড় ধাক্কা খেয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেস। কিন্তু বিজেপিতেও সুখের হয়নি মুকুলের যাত্রা। শুভেন্দু দলে ভিঁড়তেই গুরুত্ব হারাতে থাকেন মুকুল।

এরই মধ্যে একুশের বিধানসভা ভোটে মুখ থুবড়ে পড়ে বিজেপি। তৃণমূলের এই বড় সাফল্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কারণেই এসেছে বলে স্পষ্ট বার্তা দিয়েছেন অনুব্রত মণ্ডল। তিনি বলেছেন মুকুল তৃণমূলে এলেও দলের চাণক্য কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই।

এদিন আবার অনুব্রত মণ্ডল দাবি করেছেন তৃণমূল কংগ্রেস ২৩০টি আসন পাবে তৃণমূল কংগ্রেস। এখনও রাজ্যে ৬টি কেন্দ্রে নির্বাচন বাকি। কাজেই তৃণমূলের আরও সাফল্য আসবে বলে জানিয়েছেন অনুব্রত মণ্ডল। অনুব্রত মণ্ডলকে নজরবন্দি করেও বীরভূমে ভাল করে পদ্ম ফোটাতে পারেনি বিজেপি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button